সোমবার, ০৪ ডিসেম্বর ২০২৩, ০৬:১৭ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
ভাস্কর নিতুন কুন্ডুর জন্মদিন পালিত পিকআপ ভ্যান উল্টে নিহত১গরু চোর ১২ নং তিতপল্লা ইউনিয়নের পঙ্গুদের মাঝে হুইল চেয়ার বিতরন ঝিনাইগাতীতে প্রতিবন্ধী হাবিবুল্লাহ বাহার হাসুর মানবেতর জীবনযাপন শুভেচ্ছ নড়াইল দুই আসনের জনগণ। দেখা হবে আবার,,,,, ইনশাল্লাহ জামালপুর ট্রেনের ধাক্কায় নিহত ১ আহত ১ নওগাঁর ১০ নং ভীমপুর ইউনিয়নের পীড়ারমোড়ে উজ্জ্বলের রাইচ মিল থেকে লাইলি গলাকাটা লাশ উদ্ধার বাংলাদেশ প্রেসক্লাব আদিতমারী উপজেলা শাখার পুনাঙ্গ কমিটি ঘোষনা নওগাঁর মহাদেবপুর দাঁড়িয়ে থাকা ট্রাকে আগুনদিল দুর্বৃত্তরা ক্ষেতলালে এক কৃষকের ধান ও খড়ের গাদায় অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে দুপচাঁচিয়ায় বিজয়া পূর্ণমিলনী ২০২৩ অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত দুপচাঁচিয়ায় মিটার চুরির ঘটনায় দুইজন গ্রেফতার মধুপুরে অগ্নিকান্ডে ৭ ব্যবসা প্রতিষ্ঠান পুড়ে ভস্মীভূত প্রায় ৭০ লক্ষ টাকার ক্ষতি স্টিকার লাগানো থাকলে পুলিশ আর ধরবে না !! ধনবাড়ী উপজেলা প্রেসক্লাবের আয়োজনে সাংবাদিক জাহাঙ্গীর এর জন্য দোয়া মাহফিল নওগাঁ তিলকপুরে রিংকু নামে যুবতীর মৃত্যুর রহস্য উদঘাটন অতঃপর পিতা ও পুত্র আটক নওগাঁয় এক কিশোরীকে অপহরণ অতঃপর ভিকটিম উদ্ধারসহ মুরাদ আটক নওগাঁর মহাদেবপুরে বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালিয়ে এক নারীসহ ১৩ জন আটক গুইমারায় ১৫ লাখ টাকার ভারতীয় ঔষুধ ও ২০ লক্ষ টাকার গাড়ি সহ আটক ২ ভাঙ্গা উপজেলায় ডিবি পুলিশের অভিযানে দুই মাদক ব্যবসায়ী গ্রেপ্তার

সিলেটে পাওয়ার গ্রিডের আগুনে ব্যাপক ক্ষয় ক্ষতি ॥ বিদ্যুৎ বিচ্ছিন্ন

রিপোর্টারের নাম
  • আপডেট টাইম : বুধবার, ১৮ নভেম্বর, ২০২০
  • ৩৪৭ বার পঠিত

Cinnঃ- সিলেটের কুমারগাঁওয়ে ১৩২/৩৩ কেভির বিদ্যুৎকেন্দ্রে ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে। দমকলবাহিনীর ৭টি ইউনিট প্রায় পৌনে ২ ঘণ্টা চেষ্টা চালিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে। দুপুুর পৌনে ১টার দিকে আগুন নিয়ন্ত্রণে আসে। তবে আগুনে গ্রিডের বিভিন্ন যন্ত্রাংশ বিকট শব্দে বিস্ফোরিত হয়। আগুনে তেল সরবরাহের ইউনিটসহ বিদ্যুতের ৩ টি ইউনিট পুড়ে গেছে। এতে বিপুল ক্ষতি সাধিত হয়েছে। অগ্নিকাণ্ডের কারণে পুরো সিলেটে বিদ্যুৎ সরবরাহ বন্ধ রয়েছে।
এদিকে, আগুন নিয়ন্ত্রণ করতে গিয়ে দমকলবাহিনীর জয়ন্ত কুমার নামের এক সদস্য আহত হয়েছেন। তাকে সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। দুপুর ১টায় সিলেটের সহকারী পরিচালক কুবাদ আলী সরকার এসব তথ্য নিশ্চিত করেন। তিনি বলেন, বেলা ১১টায় আগুন লাগে। খবর পেয়ে দমকলবাহিনীর সাতটি ইউনিট একযোগে চেষ্টা চালিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রণ করেছে। এখন আমরা মেশিনগুলো ঠান্ডা করার জন্য পানি দিচ্ছি।
তিনি আরও বলেন, ১৩২/৩৩ কেভির জাতীয় গ্রিড লাইনের বিদ্যুতের তিনটি ইউনিটে পুড়ে গেছে। এরমধ্যে সবচেয়ে বেশি ক্ষতি হয়েছে ওয়েল (তেল) সরবরাহ ইউনিটের। আগুন লাগার আগে বিকট শব্দ হয়। আমরা ধারণা করেছিলাম, শর্টসার্কিট থেকে আগুনের সূত্রপাত হতে পারে। তবে তদন্তে আগুনের সঠিক কারণ জানা যাবে বলে মন্তব্য করেন তিনি।
বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ড সিলেটের নির্বাহী প্রকৌশলি ফজলুল হক বলেন, আগুনে বিদ্যুৎকেন্দ্রের বড় তিনটি ট্রান্সফরমার পুঁড়ে গেছে। এ অবস্থায় পুরো সিলেটে বিদ্যুৎ সরহরাহ বন্ধ রয়েছে। আমরা দ্রুত বিদ্যুৎ সরবরাহ স্বাভাবিক করতে কাজ করছি। তবে কতসময় লাগবে এটা এই মুহূর্তে বলা যাচ্ছে না।
আগুনে বিশাল ক্ষতি হয়েছে জানিয়ে তিনি বলেন, এর পরিমাণ কত কোটি টাকা তা তদন্তের পরই বলা যাবে। কেন্দ্রটি মেরামতে ঢাকা থেকে বিশেষজ্ঞ দল আসছে বলেও জানান তিনি।
এদিকে, কুমারগাঁও বিদ্যুৎ কেন্দ্রে ভয়াবহ আগুনের খবর পেয়ে দুপুর একটার দিকে ঘটনাস্থল পরিদর্শনে যান সিলেটের জেলা প্রশাসক কাজী এম এমদাদুল ইসলাম।
পরিদর্শন শেষে তিনি বলেন, আগুনের কারণে বিদ্যুৎকেন্দ্রের ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে। এ ঘটনা তদন্তে একটি কমিটি গঠন করা হবে। বিদ্যুৎ বিভাগের প্রকৌশলীদের দিয়েই এ কমিটি গঠন করা হবে। তিনি বলেন, যতদ্রুত সম্ভব বিদ্যুৎ সরবরাহ স্বাভাবিক করতে প্রকৌশলীদের একটি দল কাজ শুরু করেছে। তবে আগুনে ব্যাপক ক্ষতি হওয়ায় সবাইকে বিদ্যুতের জন্য একটু ধৈর্য ধরতে হবে।
গ্রিড উপ-কেন্দ্রের সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, আগুনে ৭০ কোটি টাকার ২৫/৪১ এমবিএ দুটি ট্রান্সফরমার পুড়ে গেছে। ট্রান্সফরমারগুলোর বাইরের অংশ পুড়লেও ভেতরে কোনো ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে কিনা তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে। এছাড়া ৩৩ কেভি ফিডার ও বার ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে।
গ্রিড উপ কেন্দ্রে অগ্নিকাণ্ডে পুরো সিলেটে বিদ্যুৎ সরবরাহ ব্যবস্থা বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছে। সকাল সাড়ে ১১টা থেকে সিলেট নগরী, আশপাশের বিভিন্ন এলাকা, ছাতক ও সুনামগঞ্জ বিদ্যুৎহীন হয়ে পড়ে। ফলে প্রায় সাড়ে ৪ লক্ষাধিক গ্রাহক দুর্ভোগে পড়তে হয়েছে।
এদিকে বিদ্যুৎ ব্যবস্থার বিপর্যয়ে বিপাকে পড়েছেন মহানগর এলাকার লোকজন। বিশেষ করে বিদ্যুৎ না থাকায় পানি সরবরাহ বন্ধ রয়েছে। এতে করে এলাকার বিভিন্ন বাসা-বাড়ি ও হাসপাতালে রোগীরাও পড়েছেন বিপাকে।
বিদ্যুৎ বিতরণ বিভাগ সিলেটর প্রধান প্রকৌশলী মোকাম্মেল হোসেন বলেন, তাদের প্রায় ৪ লাখ ৩০ হাজার গ্রাহক রয়েছেন। বিদ্যুৎ ব্যবস্থার বিপর্যয়ে প্রায় ৩ লক্ষাধিক গ্রাহক দুর্ভোগে পড়েছেন। বিপর্যয় কাটিয়ে উঠতে আমরা যথাসাধ্য চেষ্টা করছি। গ্রিড উপ কেন্দ্রের লোকজনও অবিরাম কাজ করে যাচ্ছেন। তিনি বলেন, কিভাবে অগ্নিকাণ্ডের সূত্রপাত তা এখনই বলা যাচ্ছে না। তবে এ বিষয়ে উচ্চপর্যায় থেকে একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হবে।
বিদ্যুৎ বিতরণ বিভাগ-৪ এর নির্বাহী প্রকৌশলী আব্দুর রাজ্জাক বলেন, সাব স্টেশনে অনেকগুলো প্যানেল আছে। কোনোটি থেকে অগ্নিকাণ্ডের সূত্রপাত তা এখনই বলা যাচ্ছে না।

নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর..
এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি।
Developed By cinn24.com
themesbazar24752150