সোমবার, ০৪ ডিসেম্বর ২০২৩, ০৯:৩৭ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
১২ নং তিতপল্লা ইউনিয়নের পঙ্গুদের মাঝে হুইল চেয়ার বিতরন ঝিনাইগাতীতে প্রতিবন্ধী হাবিবুল্লাহ বাহার হাসুর মানবেতর জীবনযাপন শুভেচ্ছ নড়াইল দুই আসনের জনগণ। দেখা হবে আবার,,,,, ইনশাল্লাহ জামালপুর ট্রেনের ধাক্কায় নিহত ১ আহত ১ নওগাঁর ১০ নং ভীমপুর ইউনিয়নের পীড়ারমোড়ে উজ্জ্বলের রাইচ মিল থেকে লাইলি গলাকাটা লাশ উদ্ধার বাংলাদেশ প্রেসক্লাব আদিতমারী উপজেলা শাখার পুনাঙ্গ কমিটি ঘোষনা নওগাঁর মহাদেবপুর দাঁড়িয়ে থাকা ট্রাকে আগুনদিল দুর্বৃত্তরা ক্ষেতলালে এক কৃষকের ধান ও খড়ের গাদায় অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে দুপচাঁচিয়ায় বিজয়া পূর্ণমিলনী ২০২৩ অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত দুপচাঁচিয়ায় মিটার চুরির ঘটনায় দুইজন গ্রেফতার মধুপুরে অগ্নিকান্ডে ৭ ব্যবসা প্রতিষ্ঠান পুড়ে ভস্মীভূত প্রায় ৭০ লক্ষ টাকার ক্ষতি স্টিকার লাগানো থাকলে পুলিশ আর ধরবে না !! ধনবাড়ী উপজেলা প্রেসক্লাবের আয়োজনে সাংবাদিক জাহাঙ্গীর এর জন্য দোয়া মাহফিল নওগাঁ তিলকপুরে রিংকু নামে যুবতীর মৃত্যুর রহস্য উদঘাটন অতঃপর পিতা ও পুত্র আটক নওগাঁয় এক কিশোরীকে অপহরণ অতঃপর ভিকটিম উদ্ধারসহ মুরাদ আটক নওগাঁর মহাদেবপুরে বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালিয়ে এক নারীসহ ১৩ জন আটক গুইমারায় ১৫ লাখ টাকার ভারতীয় ঔষুধ ও ২০ লক্ষ টাকার গাড়ি সহ আটক ২ ভাঙ্গা উপজেলায় ডিবি পুলিশের অভিযানে দুই মাদক ব্যবসায়ী গ্রেপ্তার শেরপুরের নালিতাবাড়ীতে লক্ষাধিক টাকার ভারতীয় মদ সহ গ্রেপ্তার-১ বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী আনোয়ার হোসেন খান লক্ষ্মীপুর-১  আচরণবিধি লঙ্ঘনের কারণে শোকজ করেছে নির্বাচন কমিশন (ইসি)।

ফেসবুক-গুগলে যাচ্ছে ২ হাজার কোটি টাকা

রিপোর্টারের নাম
  • আপডেট টাইম : সোমবার, ৪ জানুয়ারী, ২০২১
  • ১৭৩ বার পঠিত

ফেসবুক-গুগলে যাচ্ছে ২ হাজার কোটি টাকা

sharethis sharing button
ফেসবুক-গুগলে যাচ্ছে ২ হাজার কোটি টাকা

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুক, ইনস্টাগ্রাম ও ইউটিউবে পণ্যের বিজ্ঞাপন প্রচারের মাধ্যমে দেশ থেকে প্রতি বছর প্রায় দুই হাজার কোটি টাকা চলে যাচ্ছে। এর মধ্যে ফেসবুকে প্রচার হওয়া বিজ্ঞাপন ও বুস্টিংয়ে যে অর্থ ব্যয় করা হচ্ছে, তার বড় একটি অংশ সরকার রাজস্ব পাচ্ছে।

সম্প্রতি দেশে ফেসবুক তাদের অথরাইজড সেলস পার্টনার নিয়োগ দিয়েছে। এইচটিটিপুল নামের ওই প্রতিষ্ঠানের যারা ক্লায়েন্ট, তারা দেশীয় টাকায় তাদের বিজ্ঞাপনসহ অন্যান্য খরচের বিল দিতে পারছে। এইচটিটিপুল ভ্যাটসহ অন্যান্য খরচ কেটে রেখে অর্থ পরিশোধ করতে পারছে ফেসবুককে। সরকারও এ খাত থেকে আয় করছে। যদিও আগে এ আয়ের খাতা ছিল শূন্য।

তবে এইচটিটিপুলের মতো ফেসবুকের সেলস পার্টনার থাকলেও ইউটিউব, গুগল বা অন্যান্য মাধ্যমের জন্য কোনো এজেন্ট বা পার্টনার নেই। ফলে যারা ওইসব মাধ্যমে বিজ্ঞাপন দিচ্ছেন তাদের ব্যাংকিং চ্যানেল (ইন্টারন্যাশনাল ক্রেডিট কার্ড) বা বিভিন্ন পেমেন্ট প্রসেসর ব্যবহার করছেন। অনেকে ‘নন-চ্যানেল’ ব্যবহার করেও এ খাতে খরচ করছেন। সেখান থেকেও সরকার কোনো রাজস্ব পায় না।

অনলাইন প্ল্যাটফরমে বিজ্ঞাপন প্রচারের জন্য প্রয়োজন হয় ইন্টারন্যাশনাল ক্রেডিট কার্ড, অনলাইন পেমেন্ট প্রসেসর পেপাল বা পেয়োনিয়ারের মতো মাধ্যম। দেশে এইচটিটিপুল তাদের অপারেশন শুরু করার পর থেকে বৈধ চ্যানেলেই ফেসবুকে বুস্টিং ও বিজ্ঞাপন প্রকাশের জন্য ডলার বা পেপালে পেমেন্ট করতে হচ্ছে না। দেশীয় মুদ্রায় (লোকাল কারেন্সি) সেসব বিল পরিশোধ করা যাচ্ছে।

এইচটিটিপুলের ক্লায়েন্ট সলিউশন্স ম্যানেজার তানভীর হোসেনের কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘আমরা শুধু ফেসবুক নিয়ে কাজ করছি। ফেসবুকে যেসব বিজ্ঞাপন যাচ্ছে সেসব থেকে ভ্যাট (মূল্য সংযোজন কর) ও বিদেশে টাকা পাঠাতে গেলে যেসব কর থাকে তা কেটে আমরা ফেসবুককে পরিশোধ করছি। ভ্যাট ও কর সরকারকে জমা দেওয়া হচ্ছে।’ তিনি জানান, বর্তমানে দেশে এইচটিটিপুলের পাঁচ শতাধিক ক্লায়েন্ট রয়েছে।

বেসিসের সাবেক সভাপতি ও প্রযুক্তি উদ্যোক্তা ফাহিম মাশরুর বলেন, ‘নন-চ্যানেল দিয়ে বিল বা মূল্য পরিশোধ করতে গেলে খরচ বেশি হতো। বৈধ চ্যানেলে খরচ কম হচ্ছে।’ দুই বছর আগেও এই খাতে দেশের বাইরে চলে যেত প্রায় হাজার কোটি টাকা। বর্তমানে তা বেড়ে দ্বিগুণ হয়েছে। এর পরিমাণ প্রায় দুই হাজার কোটি টাকা বলে উল্লেখ করেন ফাহিম মাশরুর। তিনি জানান, খবরের কাগজে বিজ্ঞাপন কমে গেছে। বাড়ছে ডিজিটাল মাধ্যমে।

সংশ্লিষ্টরা বলছেন, দেশি-বিদেশি ডিজিটাল প্রোডাক্ট বা সার্ভিস কোম্পানিগুলো দেশের বাইরে তাদের মাদার কোম্পানির মাধ্যমে ডিজিটাল মাধ্যমে বিজ্ঞাপন প্রকাশের বিল পরিশোধ করে থাকে। এটা ঠিক নয়। ওই কোম্পানিগুলো যদি দেশে এফডিআইয়ের মাধ্যমে বিনিয়োগ এনে সংশ্লিষ্ট খাতে খরচ করত, তাহলে দেশ আরো উপকৃত হতো। কিন্তু তা করা হচ্ছে না। এটাও কিন্তু এক অর্থে মানিলন্ডারিং।

সংশ্লিষ্টরা জানান, ফিজিক্যাল প্রোডাক্টের ক্ষেত্রে দেশের ভেতর থেকেই ফরমায়েশ করে পণ্য কিনতে হয় বা বিদেশ থেকে মেশিনারিজ আনতে হয়। সে ক্ষেত্রে টাকা দেশের ভেতর থেকে বাইরে যায়। কিন্তু ডিজিটাল প্রোডাক্টের বেলায় এটা হচ্ছে না। কিছু ডিজিটাল কোম্পানি দেশের বাইরে থেকে মাদার কোম্পানির মাধ্যমে ডিজিটাল মাধ্যমে বিজ্ঞাপনের বিল পরিশোধ করে। ওই অর্থগুলো দেশে এনে তবে ডিজিটাল মাধ্যমের বিল পরিশোধ করার কথ।

নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর..
এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি।
Developed By cinn24.com
themesbazar24752150