শুক্রবার, ০১ মার্চ ২০২৪, ০৯:০১ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
নওগাঁ মহিলা আওয়ামী লীগের ৫৫তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালিত নওগাঁর আত্রাই নদী থেকে বালু তোলায় ফসলি জমি নদীগর্ভে বিলীন দেখার কেউ নেই নওগাঁ ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের যৌথ অভিযানে চার প্রতিষ্ঠানকে ৫ হাজার চারশত টাকা জরিমানা কালাইয়ে জাতীয় বীমা দিবস ২০২৪ পালিত নওগাঁর একুশে পরিষদের সন্মানিত উপদেষ্টা অধ্যাপক নুরুল হক আর নেই নওগাঁয় স্ত্রী হত্যার দায়ে স্বামী মোস্তাফিজুর রহমান নামে এক ব্যক্তির মৃত্যুদন্ড দিয়েছে আদালত নওগাঁ বাস্তবায়ন ইরিবোরো সমলয় চাষের প্রদর্শনী ও মাঠ দিবস পরিদর্শন করেন মতিউর রহমান গাইবান্ধায় হয়ে গেল লোকজ সাংস্কৃতিক উৎসব মানবসেবায় এগিয়ে এলেন মধুপুর উপজেলা প্রেসক্লাব দুপচাঁচিয়া থানা পুলিশের অভিযানে নকল স্বর্ণে মূর্তির আসামি সহ পাঁচজন গ্রেফতার রায়কালী উন্নয়ন ফোরামের ফ্রি মেডিকেল ক্যাম্পেইন কালাইয়ে শিক্ষকের পিতার ইন্তেকালে শোক প্রকাশ নওগাঁ ব্রিটিশ আমলের ২০০ বছরের পুরাতন মসজিদের সন্ধান মিলেছে হাতিমন্ডালা গ্রামে নওগাঁ পাওয়ার টিলার এর ধাক্কায় জিল্লুর রহমান নামে এক বৃদ্ধের মর্মান্তিক মৃত্যু ভারতবর্ষের প্রথম রাষ্ট্রপতি ড, রাজেন্দ্র প্রসাদ এর প্রয়াণ দিবস আজঃ নওগাঁ ধামইরহাটে যুবলীগের সদস্য সংগ্রহ ও নবায়ন কার্যক্রমের শুভ উদ্বোধন অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত সুন্দরগঞ্জে চার পুলিশ হত্যা দিবস পালিত নওগাঁ প্রাইভেট কার থেকে ৭২ কেজি গাঁজাসহ মুনির হোসেন নামে এক জন গ্রেপ্তার বগুড়ায় গাঁজাসহ এক মাদক কারবারি আটক জয়পুরহাটের এসপি নুরে আলম বিপিএম- পদক পেলেন

মহাসড়কে দীর্ঘ যানজট ॥ ফেরিঘাটে উপচেপড়া ভিড়

রিপোর্টারের নাম
  • আপডেট টাইম : রবিবার, ১৮ জুলাই, ২০২১
  • ৯১ বার পঠিত

ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে ঈদযাত্রা শুরু হয়েছে। ঈদে বাড়ি ফেরা নিয়ে ভয়াবহ দুর্ভোগে পড়ছে মানুষ। মহাসড়কগুলোতে ভয়াবহ যানজটে ঘন্টার পর ঘন্টা আটকা পড়েছে ঘরমুখো মানুষ। ফলে দেখা দিয়েছে চরম ভোগান্তি। ফেরি ঘাট গুলোতেও যানবাহনের দীর্ঘ লাইন।
আগামী বুধবার দেশে পবিত্র ঈদুল আযহা উদযাপিত হবে। পবিত্র ঈদুল আযহা উদযাপন, জনসাধারণের যাতায়াত, ঈদ পূর্ববর্তী ব্যবসা-বাণিজ্য পরিচালনা, দেশের আর্থ-সামাজিক অবস্থা এবং অর্থনৈতিক কার্যক্রম স্বাভাবিক রাখার স্বার্থে গত ১৪ জুলাই মধ্যরাত থেকে আগামী ২৩ জুলাই সকাল ৬টা পর্যন্ত বিধিনিষেধ শিথিল থাকছে।
এ অবস্থায় পরিবহন খাত সংশ্লিষ্ট বিশেষজ্ঞরা বলছেন, সরকার যাওয়ার জন্য সময় দিলেও বাড়ি থেকে ফেরার জন্য মাত্র একদিন সময় দিয়েছে। সরকারি এই নির্দেশনা তৈরির সঙ্গে যুক্ত ব্যক্তিদের বিষয়টি নিয়ে আগেই ভাবা উচিত ছিল। কারণ এ সিদ্ধান্তে সাধারণ যাত্রীরা ভয়াবহ বিপদে পড়বেন।
বাংলাদেশ যাত্রী কল্যাণ সমিতির মহাসচিব মোজাম্মেল হক চৌধুরী বলেন, যে বা যারা এ ধরনের সিদ্ধান্ত সংবলিত প্রজ্ঞাপন তৈরি করেছেন তারা ভুল করেছেন। এই ভুলের মাশুল সাধারণ মানুষকে দিতে হবে।
ঢাকা সড়ক পরিবহন মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক খন্দকার এনায়েত উল্ল্যাহ বলেন, সরকারের নির্দেশনা আমরা প্রতিপালন করব। তবে এর আগেও আমরা দেখেছি- গণপরিবহন বন্ধ থাকলেও যাত্রীরা বিকল্প পরিবহনে যাতায়াত করেছেন। এবারও তাই দেখতে হবে।
বুয়েটের অধ্যাপক ড. সামছুল হক বলেন, করোনার আগে আন্তঃমন্ত্রণালয় সভা করে ঈদযাত্রার বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেওয়া হতো। এসব সিদ্ধান্ত কার্যকর করার জন্য একটা চাপ থাকত। এবার স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে বৈঠক হয়েছে। কিন্তু তারপর সরকারি প্রজ্ঞাপন দিয়ে বলা হয়েছে, আট দিনের জন্য বিধিনিষেধ শিথিল করা হয়েছে। আট দিন পর আবার বিধিনিষেধ থাকছে। কিন্তু ঈদে বাড়ি যাওয়ার সময় দিয়ে এবার আর ফেরার সময় দেয়া হচ্ছে না। তাতে বিপর্যয় তৈরি হবে।
গত মঙ্গলবার মন্ত্রী পরিষদ বিভাগ থেকে জারি করা প্রজ্ঞাপন অনুসারে, ঈদুল আযহা উদযাপনের জন্য চলমান বিধিনিষেধ শিথিল করা হয়েছে। ১৪ জুলাই মধ্যরাত থেকে এই নির্দেশনা বাস্তবায়ন শুরু হয়েছে। তা বলবৎ থাকছে ২৩ জুলাই ভোর ৬টা পর্যন্ত। সব ধরনের বিধিনিষেধ শিথিল থাকছে।
বলা হয়েছে, ২৩ জুলাই ভোর ৬টা থেকে ৫ অগাস্ট রাত ১২টা পর্যন্ত নতুন করে কঠোর বিধিনিষেধ থাকছে। বিধিনিষেধ শিথিল করায় অন্যান্য পরিবহনের মতে ট্রেনেও ঈদযাত্রা শুরু হয়েছে। তবে ঈদযাত্রায় অন্যান্য সময়ের মতো যাত্রীদের হুড়োহুড়ি নেই কমলাপুর রেলওয়ে স্টেশনে। গতকাল সকাল থেকে কমলাপুর রেলস্টেশন থেকে দেশের বিভিন্ন স্থানের উদ্দেশ্যে ছেড়ে যায় একের পর এক ট্রেন। ট্রেনযাত্রীরা অনলাইনে টিকিট কেটে ট্রেনে বাড়ি যাচ্ছেন। করোনাভাইরাসের সংক্রমণ এড়াতে অর্ধেক যাত্রী নিয়ে চলছে যাত্রীবাহী ট্রেন।
জয়ন্তিকা এক্সপ্রেস ট্রেনে শনিবার বাড়ি যাওয়ার জন্য ওই ট্রেনে উঠেন শরীফুল আজিম। তিনি বলেন, বাড়ি যাচ্ছি। কিন্তু ফেরার জন্য কোনো টিকিট পাইনি। কিভাবে ফিরব জানি না। মঙ্গলবার একতা এক্সপ্রেস ট্রেনে দিনাজপুর যাবার টিকিট পেয়েছেন জয়নুল আবেদীন। তিনি বলেন, তিন দিন বাড়তি ছুটি নিয়ে দিনাজপুর যাব। তবে ফেরার সময় বিধিনিষেধ থাকবে। ঢাকায় বিকল্পভাবে ফিরতে হবে।
রাজধানীর সায়েদাবাদ, গাবতলী ও মহাখালী বাস টার্মিনাল এবং সদরঘাট থেকে বাড়ি যাচ্ছেন। কিন্তু তারাও বলছেন, ঈদের একদিন পর সব বন্ধ হয়ে যাচ্ছে। ফিরবেন কীভাবে?
বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন শ্রমিক ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক ওসমান আলী বলেন, যাত্রীরা বাড়ি যাচ্ছেন। প্রতিদিন হাজার হাজার মানুষ বাড়ি যাচ্ছেন। তৈরি পোশাক কারখানার শ্রমিকরা বাড়ি যাওয়া শুরু করবেন দলবেঁধে। স্বাভাবিক সময়ে ভিন্ন ভিন্ন দিনে গেলেও পরিবহনের সংকট হয়। এবার ঈদের পরদিন মানুষ একদিনে ঢাকায় এক সঙ্গে ফিরবে কীভাবে ?
এদিকে লকডাউন তুলে দেয়ার তৃতীয় দিনে শিবচরের বাংলাবাজার ঘাটে বেড়েছে ঘরমুখো মানুষের ভিড়।
শনিবার দুপুর থেকে নৌরুটে যাত্রীদের ভিড় বাড়তে থাকে। লঞ্চে করে হাজার হাজার যাত্রী এসে নামে বাংলাবাজার ঘাটে। দূরপাল্লার পরিবহন কাউন্টারেও ছিল যাত্রীদের চাপ। বাস, মাইক্রোবাস, থ্রি-হুইলার মাহিন্দ্রা, ইজিবাইক আর মোটরসাইকেলে গন্তব্যে ছুটছে রাজধানী ঢাকা থেকে আসা যাত্রীরা। অন্যদিকে, ফেরিঘাটেও রয়েছে পারাপারের অপেক্ষায় থাকা যানবাহনের বাড়তি চাপ। গরু বোঝাই ট্রাকের লম্বা সিরিয়াল আর টার্মিনালে অপেক্ষামান অন্য যানবাহন।
বি আইডব্লিউটিএ’র বাংলাবাজার লঞ্চঘাট সূত্রে জানা যায়, গত বৃহ¯ লঞ্চ চলাচল শুরু করার পর শনিবার সকাল থেকে নৌরুটে যাত্রীচাপ বেড়েছে। ঈদকে সামনে রেখে বাড়ি ফিরতে শুরু করেছে দক্ষিণাঞ্চলের হাজার হাজার যাত্রী। ঈদের বাকি আর মাত্র ৩ দিন হলেও অন্য বছরের চেয়ে এবার ঘরমুখো মানুষের চাপ এই সময়ে কিছুটা কম রয়েছে। নৌরুটে ৮৭টি লঞ্চ চলছে। ধারণক্ষমতার অর্ধেক যাত্রী নিয়ে চলাচল করছে। এদিকে, বাংলাবাজার ঘাট থেকে ঢাকাগামী যাত্রী নেই বললেই চলে। অনেকটা যাত্রীশূন্য লঞ্চ শিমুলিয়ার উদ্দেশে ঘাট ছেড়ে যাচ্ছে।
এদিকে শনিবার  সকাল থেকে মহাসড়কের বঙ্গবন্ধু সেতু পূর্ব, কালিহাতীর জোকারচর, সল্লা, এলেঙ্গা বাসস্ট্যান্ড, পুংলি, টাঙ্গাইলের রাবনা বাইপাস এলাকার ২৩ কিলোমিটার মহাসড়কে থেমে থেমে পরিবহন চলাচল করছে। এছাড়া কোথাও কোথাও যানজটের সৃষ্টি হচ্ছে। বিকেলেও একই চিত্র দেখা গেছে। তবে মহাসড়কে বাসের সংখ্যা বেশি দেখা যায়নি। পুরো মহাসড়ক জুড়ে ছিল মালবাহী, গরুবাহী ও কাঁচামালের ট্রাক।
ট্রাকচালক মাকসিদুল বলেন, বগুড়া যাওয়ার জন্য ঢাকা থেকে রওনা হয়েছি রাতে। দুপুর ১টায় টাঙ্গাইলে প্রবেশ করছি। টাঙ্গাইল পার হয়ে আবার সিরাজগঞ্জে যানজটে পড়তে হবে। চালকরা জানান, মহাসড়কের টাঙ্গাইল থেকে এলেঙ্গা পর্যন্ত আসতে দুই ঘণ্টা সময় লেগেছে। বাকি পথ পড়ে আছে।
মহাসড়কের এলেঙ্গায় দায়িত্বরত ট্রাফিক সার্জেন্ট মুশফিকুর রহমান জানান, ভোররাত থেকেই মহাসড়কে ব্যাপক পরিবহনের চাপ রয়েছে। এছাড়া রাতে বঙ্গবন্ধু সেতুতে টোল আদায় বন্ধ ছিল। এতে গাড়ির চাপ মহাসড়কে আরও বেড়ে গেছে। তবে ট্রাফিক ও জেলা পুলিশের সদস্যরা মহাসড়কে যানবাহন চলাচল স্বাভাবিক করতে নিরলসভাবে কাজ করছে।ঈদে ঘরমুখো মানুষ ও যানবাহনের চাপ বাড়ছে মানিকগঞ্জের শিবালয় উপজেলার পাটুরিয়া ফেরিঘাট এলাকায়। প্রিয়জনদের সঙ্গে ঈদ করতে রাজধানী ঢাকা ছাড়ছে মানুষ। যাত্রী ভোগান্তির বিষয়টি বিবেচনা করে যাত্রীবাহী বাস ও ব্যক্তিগত ছোট গাড়ি অগ্রাধিকার ভিত্তিতে পারাপার করছে ফেরিঘাট কর্তৃপক্ষ।
এতে ঘাট এলাকায় ভোগান্তিতে পড়েছেন সাধারণ পণ্যবাহী ট্রাকের চালক ও সহযোগিরা। ৩০ মিনিটের নৌপথ পারাপারে অপেক্ষ করতে হচ্ছে ঘণ্টার পর ঘণ্টা। অগ্রাধিকার ভিত্তিতে বাস, ছোট গাড়ি পারাপার করায় ঘাট এলাকায় আটকে পড়া এসব ট্রাক চালকদের কিছুটা ভোগান্তিতে পড়তে হচ্ছে বলে জানিয়েছে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ।
শনিবার বেলা পৌনে ৩টার দিকে পাটুরিয়া ফেরিঘাট এলাকার দুটি ট্রাক টার্মিনাল পণ্যবাহী ট্রাকে ভর্তি ছিল। জিরো পয়েন্ট থেকে আরসিএল মোড় ছাড়িয়ে গেছে পণ্যবাহী ট্রাকের সারি। সব মিলে পাঁচ শতাধিক পণ্যবাহী ট্রাক ঘাট পারাপারের অপেক্ষায় থাকতে দেখা গেছে।
অন্যদিকে শতাধিক যাত্রীবাহী বাস, অর্ধশতাধিক ছোট গাড়ি নৌপথ পারাপারের অপেক্ষায় রয়েছে। সকাল থেকে যাত্রীবাহী বাস ও ছোট গাড়ির চাপ থাকায় ভোগান্তি বাড়ছে সাধারণ পণ্যবাহী ট্রাক চালকদের। তবে নৌপথে যানবাহন পারাপার স্বাভাবিক রাখতে ১৬টি ফেরি দিয়ে অপেক্ষামাণ এসব যানবাহন পারাপার করছে ঘাট সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা।
পাটুরিয়া ট্রাক টার্মিনালে কথা হলে কুষ্টিয়াগামী ট্রাকচালক মোমিন মিয়া বলেন, গতকাল রাত ৪টার দিকে পাটুরিয়া ফেরিঘাটে আসছি। এখনও ফেরিতে উঠতে পারি নাই। সকাল থেকেই যাত্রীবাহী বাস ও ছোট গাড়ির চাপ থাকায় সাধারণ পণ্যবাহী ট্রাক কম পারাপার করছে ঘাট কর্তৃপক্ষ। আমাদের ভোগান্তির শেষ নেই।
শনিবার বিকেলে সড়কের বাইপাইল থেকে ধউর বেড়িবাঁধ পর্যন্ত প্রায় ১২ কিলোমিটার এলাকায় যানজটের সৃষ্টি হয়েছে। এতে হাজারো যাত্রী দুর্ভোগে পড়েছেন। ১২ কিলোমিটার সড়ক পাড়ি দিতে সময় লাগছে ঘণ্টার পর ঘন্টা।
খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, সাভারের মহাসড়কগুলোতে সকালে কিছুটা যানজট থাকলেও বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে কমে যায়। তবে এখন বিকেল হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে উত্তর-পশ্চিমাঞ্চল থেকে অনেক গরুর ট্রাক ঢাকায় প্রবেশ করায় পরিবহনের চাপ কিছুটা বেড়েছে। এ কারণেই যানজটের সৃষ্টি হচ্ছে।
টঙ্গী-আশুলিয়া-ইপিজেড সড়কের বাইপাইল থেকে বিকেল সাড়ে ৩টার দিকে আশুলিয়া যাওয়ার উদ্দেশে বাসে ওঠেন কামাল। তিনি ঢাকা পোস্টকে বলেন, সাড়ে ৩টা থেকে সাড়ে ৪টা পর্যন্ত গাড়িতে বসে থেকে সবে জামগড়া পর্যন্ত এসেছি। অন্য মহাসড়কে তেমন যানজট নেই। এই সড়কে যানজট লেগেই আছে।
ডিজিটাল প্রিন্ট হাউসের ডিজাইনার নাজিম বলেন, আমি কাজের জন্য জিরাবো বাস স্ট্যান্ডে যাব। বাইপাইল থেকে গাড়িতে উঠেছিলাম। তীব্র যানজটে ইউনিক নেমেছি। সময় বাঁচানোর তাগিদে হেঁটে রওনা করেছি। এই সড়কে সব সময় পানি জমে থাকে। গাড়ি চলাচল করায় খানাখন্দে ভরে গেছে। তাই গাড়ি চলাচল করতে সমস্যা হচ্ছে। তাই যানজট লেগেই থাকে। তাছাড়া লকডাউন শিথিল হওয়ায় গাড়ির চাপও বেড়েছে। তবে যানজট নিরসনে ব্যবস্থা নেয়া উচিত।
আশুলিয়া ক্ল্যাসিক পরিবহনের চালক আমজাদ বলেন, এই সড়কে সব সময় যানজট থাকেই। আমাদের অভ্যাস হয়ে গেছে। যানজট নিরসনে তেমন কোনো পদক্ষেপ নিতে দেখি না। রাস্তাঘাটের খুব খারাপ অবস্থা। যত খানাখন্দ আর পানি তাতে যানজট তো থাকবেই।

নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর..
এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি।
Developed By cinn24.com
themesbazar24752150